মঙ্গলবার , ১১ জুলাই ২০২৩ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আর্জেন্টিনা
  5. ইউক্রেন
  6. ইরান
  7. খেলাধুলা
  8. চীন
  9. জবস
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. প্রবাস

এখনো যে স্থানে থমকে দাঁড়ায় পথিক

প্রতিবেদক
admin
জুলাই ১১, ২০২৩ ২:৫৫ অপরাহ্ণ

নুর হোসেন
চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

আজ ১১ জুলাই। শোকাবহ মিরসরাই ট্র্যাজেডির এক যুগ আজ। ক্যালেন্ডারের পাতার সব দিবস ভোলা গেলেও মিরসরাইয়ের ১১ জুলাই ট্র্যাজেডি মনে দাগ কেটে থাকার মতো। সন্তানদের জন্মদিন অনেকে ব্যস্ততায় ভুলে যায়, কিন্তু ভুলতে পারে না মৃত্যুর দিন। আর ওই মৃত্যু যদি ইতিহাসের পাতায় লেখা হয়, তা আরো বেদনাদায়ক। এখনো যাওয়া আসার পথে দুর্ঘটনাস্থানে থমকে দাঁড়ায় পথিক।

আজ থেকে ১২ বছর আগে এক ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনা প্রাণ কেড়ে নেয় এক অভিভাবক ও ফুটবলপ্রেমীসহ ৪৫ শিক্ষার্থীর। ২০১১ সালের ১১ জুলাই চট্টগ্রামের মিরসরাই স্টেডিয়াম থেকে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের খেলা শেষে একটি ট্রাকে করে আবুতোরাবে ফিরছিল তারা। পথে সৈদালীতে শিক্ষার্থীদের বহনকারী মিনি ট্রাকটি উল্টে ডোবায় পড়ে যায়। এতে একে একে মৃত্যু হয় ৪৫ জনের।

ওই দিনের দুঃসহ স্মৃতি এখনো বয়ে বেড়ায় তাদের সহপাঠী ও স্বজনরা। মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে নিহতদের স্মরণে আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবেশমুখে স্থাপন করা হয়েছে স্মৃতিস্তম্ভ ‘আবেগ’ এবং দুর্ঘটনাস্থলে নির্মাণ করা হয়েছে স্মৃতিস্তম্ভ ‘অন্তিম’।

মিরসরাই ট্র্যাজেডি এক বিভীষিকার গল্পের নাম। একে একে ৪৫টি জীবনের কঠিন নিয়তির গল্প। ৪৫টি পরিবারের সারাজীবনের অশ্রুপাতের গল্প। চালকের সামান্য ভুলে এতগুলো খেলাপাগল শিশু-কিশোর নিয়ে মিনি ট্রাকটি সোজা গিয়ে উল্টে পড়ে পাশের ডোবায়। মুহূর্তেই হইচই পড়ে যায় ঘটনাস্থলে। আশপাশের সবাই ছুটে এলো ঠিকই, কিন্তু বাঁচানো গেল না মিনি ট্রাকের তলানিতে আটকে পড়া কোনো খুদে ছাত্রকে। একে একে নিষ্প্রাণ হলো ৪৫টি তাজা জীবন।

ওই সময় নিহতদের স্বজনদের সমবেদনা জানাতে ছুটে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ, বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরু দোজা চৌধুরী, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতারাসহ দেশের বিশিষ্টজনরা।

এখনো যাওয়া-আসার পথে দুর্ঘটনাস্থলে থমকে দাঁড়ায় পথিক। প্রতিবছরের মতো এবারো নিহতদের স্মরণে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে আবুতোরাব বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি।

ভয়াল মিরসরাই ট্রাজেডিতে নিহত হওয়া অষ্টম শ্রেণির মেধাবী ছাত্র আমিন শরীফের বাবা শাহজাহান বলেন, ‘আমার ছেলে যখন মারা যায়, আমি তখন বিদেশে ছিলাম। শেষ সময়ে ছেলেটাকে আমি দেখিনি। এর চেয়ে কষ্টের আমার কাছে আর কিছুই নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার ছেলেসহ ৪৫ জন যেখানে নিহত হয়েছে সেখানে পরে অন্তিম নামের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয়েছে। যখনই ইকোনোমিক জোনের রোড দিয়ে যাতায়াত করি, ওই অন্তিমটা নজরে পড়ে। কষ্টে তখন বুকটা ফেটে যেতে চায়।’

সর্বশেষ - Uncategorized

আপনার জন্য নির্বাচিত

বেলকুচি কামারপাড়া আলহাজ লতিফা শাহজাহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণ উৎসব

চট্টগ্রাম শহরে ভয়াবহ জলজট, দায় এড়াতে ব্যস্ত চসিক—চউক

সমকামিতা বাধ্য করায় এ হত্যা কান্ড

এসটিএনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে পদোন্নতি পেলেন নুর নবী 

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশ মাতৃকার নিরাপত্তায় সদা জাগ্রত-কক্সবাজারে এডি আর্টিলারি গান ফায়ারিং পরিদর্শন কালে সেনাবাহিনী প্রধান

টেকনাফের দুই মাদক কারবারি চট্টগ্রামে গ্রেফতার

এসএফ টিভির ৬ষ্ঠ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপিত

মহেশখালীতে করাত কল মালিকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

হোয়াইক্যং কাঞ্জরপাড়ার মাদক মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানাভূক্ত আসামী এনামুল হক র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার।

আগামীর স্বপ্নসৌধ নির্মাণের মূলকেন্দ্র শিক্ষাব্যবস্থা প্রায় সম্পূর্ণভাবে বিঘ্নিত হতে যাচ্ছে- এম জাহিদুল ইসলাম