সোমবার , ৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আর্জেন্টিনা
  5. ইউক্রেন
  6. ইরান
  7. খেলাধুলা
  8. চীন
  9. জবস
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. প্রবাস

উখিয়ায় বন কর্মকর্তা হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রতিবেদক
admin
এপ্রিল ৮, ২০২৪ ৪:৩০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক।
কক্সবাজারের উখিয়ায় পাহাড় কেটে মাটি পাচার*রদ করতে গিয়ে পাহাড় খেকোদের ড্রাম্পট্রাক চাপায় বনবিট কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় প্রধান আসামি কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। উখিয়ার থানা পুলিশের একটি টিম অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রামে আত্মগোপনে থাকা বন কর্মকর্তা সাজ্জাদ হত্যার প্রধান আসামি বাপ্পিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

সোমবার (৮ এপ্রিল) ভোররাতে এ অভিযান চালানো হয় বলে নিশ্চিত করেছেন উখিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেল।

পাহাড় কাটার খবরে অভিযানে ট্রাকচাপায় বন কর্মকর্তাকে হত্যার অভিযোগ তিনি বলেন, আমরা বন কর্মকর্তা সাজ্জাদ হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। তাকে সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ কক্সবাজার নিয়ে আসা হবে। এর মধ্যে তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে অন্যসহযোগীদের বিষয়ে জানার চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে আগামীকাল (মঙ্গলবার) সকালে প্রেস ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানানো হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, রোববার (৩১ মার্চ) ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের হরিণমারা এলাকায় পাহাড় কেটে মাটি পাচার করছিল একদল পাহাড়খেকো। খবর পেয়ে বনবিভাগের দোছড়ি বিটের কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদুজ্জামান সজলসহ কয়েকজন বনকর্মী ঘটনাস্থলে যান। এ সময় তিনিসহ মোটরসাইকেল আরোহী দুইজনকে পাচারকারীদের মাটিভর্তি ডাম্পট্রাক চাপা দেয়। এতে সাজ্জাদুজ্জামান ঘটনাস্থলে মারা যান এবং মোহাম্মদ আলী নামের এক বনরক্ষী আহত হন।

এ ঘটনায় সোমবার (১ এপ্রিল) বিকালে বন বিভাগের উখিয়া রেজ্ঞ কর্মকর্তা গাজী শফিউল আলম বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ১৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

‘বন কর্মকর্তা সাজ্জাদ পাহাড়খেকোদের পরিকল্পিত হত্যার শিকার’‘বন কর্মকর্তা সাজ্জাদ পাহাড়খেকোদের পরিকল্পিত হত্যার শিকার’
মামলার আসামিরা হলেন উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের পশ্চিম হরিণমারা এলাকার মোহাম্মদ কাশেমের ছেলে ও ডাম্পার ট্রাকচালক মো. বাপ্পী (২৩), একই এলাকার সুলতান আহম্মদের ছেলে ছৈয়দ আলম ওরফে কানা ছৈয়দ (৪০) ও তার ছেলে মো. তারেক (২০), রাজাপালং ইউনিয়নের তুতুরবিল এলাকার নুরুল আলম মাইজ্জার ছেলে হেলাল উদ্দিন (২৭), হরিণমারা এলাকার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে ছৈয়দ করিম (৩৫), একই এলাকার আব্দুল আজিজের ছেলে আনোয়ার ইসলাম (৩৫), আব্দুর রহিমের ছেলে শাহ আলম (৩৫), হিজলিয়া এলাকার ঠান্ডা মিয়ার ছেলে মো. বাবুল (৫০), একই এলাকার ফরিদ আলম ওরফে ফরিদ ড্রাইভারের ছেলে মো. রুবেল (২৪) এবং হরিণমারা এলাকার শাহ আলমের ছেলে কামাল উদ্দিন ড্রাইভার (৩৯)।

মামলায় অজ্ঞাতনামা আর ৫/৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছে এজাহারভূক্ত ৫ নম্বর আসামি ছৈয়দ করিম (৩৫)। আর হত্যার নয় দিনের মাথায় মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সর্বশেষ - Uncategorized

আপনার জন্য নির্বাচিত

সাংবাদিক ইলিয়াস হত্যা মামলার আসামি কারাগারে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা

নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মকবুল হোসেন এক শ্রমিকের মৃত্যু।

ভিডিও বার্তায় সাংবাদিকদের হুমকি দিলেন আরসা

জামিন পেলেন ধর্ষণ মামলার হেফাজত নেতা মামুনুল হক

পেকুয়ায় বনবিভাগের অভিযানে বালু ভর্তি ডাম্প ট্রাক জব্দ

মালয়েশিয়ায় ই-পাসপোর্ট ও ভিসা আবেদন কেন্দ্রের ‘কল সেন্টার’ উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী

শিক্ষা কারিকুলামে পশ্চিমা চিন্তা ও সংস্কৃতির প্রভাব দেখা যাচ্ছে- এইচ এম শাহীন আদনান

ঠাকুরগাঁওয়ের ‘স্বর্ণ পাওয়া’সেই ইটভাটায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন

মিরসরাইয়ে গর্ভবতী মায়েদের মাঝে মাতৃত্বকালীন ভাতা বিতরণ

ভবনগর কবির রহমানের বাড়ি থেকে ৭ মণ চাউল এবং ড্রাম সহ চুরি।